স্বামী কুৎসিত, চুম্বনের সময় কামড়ে জিভ ছিঁড়ল অন্তঃসত্ত্বা স্ত্রীর!

স্বামীর সঙ্গে তুমুল ঝগড়ার পর চুমু খেয়ে আদর করছিলেন স্ত্রী। রাগ গলে জল হয়ে গিয়েছিল স্বামীর। হঠাৎ কামড় জিভে। গলগল করে রক্ত ঝরে পড়ল স্বামীর মুখ থেকে। যন্ত্রণায় সংজ্ঞা হারালেন তিনি। ঘনিষ্ঠ মুহূর্তে আদর-সোহাগ-চুম্বনের সময় অন্তঃসত্ত্বা স্ত্রী কামড়ে ছিঁড়ে দিলেন স্বামীর জিভ। আধখানা জিভ খুইয়ে কার্যত বাক্‌শক্তি হারিয়েছেন দিল্লির ২২ বছরের এক যুবক। আট মাসের অন্তঃসত্ত্বা অভিযুক্তকে আটক করেছে পুলিশ। ঘটনাটি ঘটেছে রানহোলা এলাকায়।

গর্ভবতী মহিলারা সাধারণত অনেক সময়ই ছোটখাটো বিষয়ে রেগে যান৷ তাই এই ঘটনার কথা শুনে, কেউ কেউ একথা ভেবেছিলেন৷ কিন্তু প্রতিবেশীদের দাবি, সে যুক্তি এই ঘটনার ক্ষেত্রে যথার্থ নয়৷ কারণ সমস্যার সূত্রপাত হয় বছর দুয়েক আগেই৷ প্রতিবেশীরা পুলিশকে জানিয়েছেন, দু’বছর আগে ওই দম্পতির বিয়ে হয়। স্বামীকে দেখতে ভাল নয়। এই অভিযোগে সারাক্ষণ গঞ্জনা করতেন অভিযুক্ত। নানা অজুহাতে রোজই ঝগড়া লাগত বছর বাইশের ওই দম্পতির মধ্যে। শনিবারও তুমুল ঝগড়া বাঁধে। পরে মিটমাটও হয়ে যায়। কিন্তু স্বামীকে আঘাত করার জন্য ততক্ষণে অন্য ছক কষেছিলেন স্ত্রী। ভালবাসার ছল করে চুমু খেতে গিয়ে সজোরে কামড়ে দেন স্বামীর জিভ। পরে গোঙানির শব্দ শুনে যুবককে উদ্ধার করেন তাঁর বাবা। রাজধানীর সফদরজং হাসপাতালের চিকিৎসকরা আক্রান্তের জিভে অস্ত্রোপচার করেছেন।

পুলিশেও খবর দেন ওই যুবকের বাবা। অভিযুক্তের বিরুদ্ধে মারাত্মক অস্ত্র বা ওই জাতীয় কিছু দিয়ে আঘাত করার অভিযোগে মামলা দায়ের করা হয়েছে। দোষ প্রমাণিত হলে যাবজ্জীবন সাজাও হতে পারে বলে দিল্লি পুলিশের দাবি। কিন্তু ওই যুবক আদৌ আর কথা বলতে পারবেন কি না তা নিশ্চিত করে বলতে পারেননি ডাক্তাররা। এমন ঘটনাও যে ঘটতে পারে, সে ধারণা ছিল না কারও৷ অন্তঃসত্ত্বা মহিলার এই কীর্তি অবাক করেছে সকলেই৷ সবার মুখে একই কথা এমন ঘটনাও ঘটে৷