মঙ্গলবার সন্ধ্যা থেকে রাজধানীর কিছু এলাকায় গ্যাস থাকবে না

শনিবার দিনভর ভোগান্তির রেশ না পার হতেই আগামী মঙ্গলবার (১৯ ফেব্রুয়ারি) সন্ধ্যা ৬টা থেকে আবারও রাজধানীর বেশ কিছু এলাকায় গ্যাস সরবরাহ বন্ধ রাখবে তিতাস গ্যাস কোম্পানি। মেট্রোরেলের কাজের কারণে এদিন সন্ধ্যা থেকে বুধবার সকাল ছয়টা পর্যন্ত টানা ১২ ঘণ্টা গ্যাস সরবরাহ বন্ধ রাখা হবে বলে সংস্থাটি জানিয়েছে। এদিন গ্যাস সরবরাহ বন্ধের আওতায় পড়বে রামপুরা, বনশ্রী, শান্তিনগর, কাকরাইল, গুলিস্থান, তেজগাঁও, ধানমন্ডি, আজিমপুর, মিরপুরের একাংশ।

তিতাস গ্যাস বিতরণ কোম্পানির পরিচালক (অপারেশন) মো. কামরুজ্জামান রবিবার (১৭ ফেব্রুয়ারি) রাতে বলেন, শাহবাগে মেট্রোরেল নির্মাণের জন্য গ্যাস পাইপ লাইন স্থানান্তর করতে হবে। আমরা নতুন লাইন নির্মাণ করেছি। এখন পুরনো লাইনের সঙ্গে নতুন লাইন জুড়ে দেওয়া হবে। এজন্য ১৯ ফেব্রুয়ারি মঙ্গলবার সন্ধ্যা ছয়টা থেকে বুধবার সকাল ছয়টা পর্যন্ত গ্যাস সরবরাহ বন্ধ রাখা হবে।

তিনি বলেন, পাইপ লাইন স্থানান্তর কাজ শেষ হলে বুধবার সকাল আটটার মধ্যে সরবরাহ স্বাভাবিক হবে।

এর আগে গত শুক্রবার বিকেলে আশুলিয়ায় সিটি গ্যাস স্টেশনে (সিজিএস) পাইপলাইন ক্ষতিগ্রস্ত হয়। সেই ত্রুটি সারাতে গিয়ে গ্যাস সরবরাহ বন্ধ করে দেওয়া হয়। এতে শনিবার সকাল থেকে মিরপুর, মোহাম্মদপুর, গাবতলী, শ্যামলী, আগারগাঁও, ধামরাই, আশুলিয়া, আমিনবাজার ও সাভারসহ রাজধানীর আশপাশের এলাকায় গ্যাস সরবরাহ বন্ধ হয়ে যায়। হঠাৎ করে গ্যাস সরবরাহ বন্ধ হওয়ার কারণে চরম ভোগান্তির শিকার হন গ্রাহকরা। আজ রবিবার সকালে মেরামতের কাজ শেষ করে গ্যাস সরবরাহ শুরু করা হলেও সন্ধ্যা পর্যন্ত অনেক এলাকায় গ্যাস সরবরাহ স্বাভাবিক হয়নি বলে অভিযোগ আছে।

এ বিষয়ে তিতাস জানায়, সংস্থাটির অধীনে যে গ্রাহক আছে তাদের পূর্ণ মাত্রায় গ্যাস সরবরাহ করা হলে দুই হাজার ৪০০ মিলিয়ন ঘনফুট গ্যাস দরকার হয়। তবে এরমধ্যে দুই হাজার থেকে দুই হাজার ২০০ মিলিয়ন ঘনফুট গ্যাস পেলে চাহিদা মোটামুটি পূরণ করা যায়। কিন্তু এখন গড়ে গ্যাস পাওয়া যায় এক হাজার ৭০০ মিলিয়ন ঘনফুট করে। ফলে গ্যাসের চাহিদার তুলনায় সরবরাহ কম হচ্ছে।