বিয়ে মেনে না নেয়ায় শিশু অপহরণ, ৪০ লাখ টাকা মুক্তিপন দাবি

টাঙ্গাইলের গোপালপুর থেকে চার বছরের এক শিশুকে অপহরণের ৪৮ ঘন্টা পর থানা পুলিশ নেত্রকোনার বারহাট্রা উপজেলার কলসা ঝুরি গ্রাম থেকে তাকে উদ্ধার করেছে। অপহৃত শিশুর নাম আবদুল্লাহ আল ওয়ার্সি। সে গোপালপুর উপজেলার সাজনপুর গ্রামের জাকিরুল ইসলামের পুত্র। পুলিশ অপহরণের সঙ্গে জড়িত মধুপুর উপজেলার পুন্ডুরা গ্রামের আবুল হোসেনের পুত্র লিখন, দামপাড়া গ্রামের আবুল কাশেমের পুত্র সুমনকে গ্রেপ্তার করেছে।

গোপালপুর সার্কেলের অতিরিক্ত পুলিশ সুপার আমীর খসরু জানান, মধুপুর উপজেলার পুন্ডুরা গ্রামের মনসুর আলীর পুত্র নাহিদ হোসেন বছর খানেক আগে গোপালপুর উপজেলার সাজনপুর গ্রামের জাকিরুল ইসলামের ভাতিজি নূরীকে গোপনে বিয়ে করেন। নাহিদ নেশাখোর বিধায় শ^শুরবাড়ির সবাই বিরোধিতা করে। এতে নাহিদ ক্ষিপ্ত হয়ে জাকিরুলকে শিক্ষা দেয়ার পরিকল্পনা নেয়।

এরই অংশ হিসাবে নাহিদ তার বন্ধু রাজীব, সজীব, দুলাল ও লিখনের সহযোগিতায় গত রোববার বিকাল সাড়ে পাঁচটায় চকোলেটের লোভ দেখিয়ে শিশু আবদুল্লাহ আল ওয়াশিকে অপহরণ করে নিয়ে যায়। পরে মোবাইল ফোনে অপহৃতের মায়ের কাছে ৪০ লাখ টাকা মুক্তিপন দাবি করে।