পাবনায় আ’লীগ ও শ্রমিক লীগ নেতাকে কুপিয়ে জখম

পাবনার চাটমোহর উপজেলার নিমাইচড়া ইউনিয়ন পরিষদের চেয়ারম্যান ও ইউনিয়ন আওয়ামী লীগের সভাপতি এএইচএম কামরুজ্জামান খোকন (৪৮) এবং তার সহযোগী শ্রমিক লীগ নেতা সাখাওয়াত হোসেন সাখাতকে (৩৬) কুপিয়েছে দুর্বৃত্তরা। শনিবার রাত সাড়ে ১০টার দিকে চাটমোহর-ছাইকোলা সড়কের বোয়াইলমারী নামক স্থানে এই ঘটনা ঘটে। পরে আশঙ্কাজনক অবস্থায় তাদের রাজশাহী মেডিকেল কলেজ হাসপাতালে পাঠানো হয়েছে।

স্থানীয়রা জানায়, উপজেলা নির্বাচনে স্বতন্ত্র প্রার্থী আবদুল হামিদ মাস্টারের ঘোড়া মার্কার পক্ষে নির্বাচনী প্রচারণা শেষে রাতে নিমাইচড়া থেকে মোটরসাইকেলযোগে চাটমোহরে আসছিল তারা। পথে বোয়াইলমারী নামক স্থানে অজ্ঞাতনামা কয়েকজন দুর্বৃত্ত তাদের পথরোধ করে এলোপাথারী কুপিয়ে রাস্তার পাশে ফেলে রেখে পালিয়ে যায়। পরে ওই রাস্তা দিয়ে যাওয়ার সময় আরেক মোটরসাইকেল আরোহী তাদের দেখতে পেয়ে স্থানীয়দের খবর দেয়। এরপর তাদের উদ্ধার করে প্রথমে চাটমোহর উপজেলা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সে ভর্তি করা হয়। সেখানে তাদের অবস্থার অবনতি হলে আশঙ্কাজনক অবস্থায় রাজশাহী মেডিকেল কলেজ হাসপাতালে স্থানান্তর করেন কর্তব্যরত চিকিৎসক।

এদিকে খবর পেয়ে চিকিৎসাধীন দুইজনকে দেখতে হাসপাতালে যান উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তা সরকার অসীম কুমার, অতিরিক্ত পুলিশ সুপার (চাটমোহর সার্কেল) ফজল-ই-খুদা পলাশ, চাটমোহর থানার ওসি শেখ নাসীর উদ্দিন এবং উপজেলা নির্বাচন কর্মকর্তা ও সহকারী রিটার্নিং অফিসার রুহুল আমিন।

এ বিষয়ে চাটমোহর উপজেলা স্বাস্থ্য ও পরিবার পরিকল্পনা কর্মকর্তা ডা. সবিজুর রহমান জানান, তাদের দুইজনের মাথা, মুখ, বুক, পিঠসহ শরীরের বিভিন্ন স্থানে ধারালো অস্ত্রের আঘাতের চিহ্ন রয়েছে। তাদের অবস্থা গুরুতর হওয়ায় প্রাথমিক চিকিৎসা শেষে রাজশাহী মেডিকেল কলেজ হাসপাতালে পাঠানো হয়েছে।

এএসপি (চাটমোহর সার্কেল) ফজল-ই খুদা পলাশ জানান, খবর পেয়ে হাসপাতালে আহতদের সঙ্গে কথা বলেছি। সেই সঙ্গে তাৎক্ষণিকভাবে হামলাকারীদের ধরতে অভিযানে নেমেছে আইনশৃঙ্খলা বাহিনী। বিশৃঙ্খলা রোধে প্রশাসনের পক্ষ থেকে কঠোর ব্যবস্থা নেওয়া হবে।