চট্টগ্রামে ব্যবসায়ীকে কোপানোর পর তুলে নেয়ার অভিযোগ

চট্টগ্রামের রাউজানে এক ব্যবসায়ীকে গুমের অভিযোগ পাওয়া গেছে। গুমের আগে ওই ব্যবসায়ীকে ছুরিকাঘাতে জখম করা হয়। শনিবার (৫ জানুয়ারি) দুপুরে চট্টগ্রাম-কাপ্তাই সড়কের উরকিরচর ইউনিয়নের উরকিরচর বাজারে এ ঘটনা ঘটে।

গুম হওয়া ওই ব্যবসায়ীর নাম নুরুল আলম (৬০)। তিনি ওই ইউনিয়নের হারপাড়া গ্রামের করম আলী হাজী বাড়ীর সুলতান আহমদের ছেলে।

প্রত্যক্ষদর্শীরা জানান, শনিবার দুপুরে উরকিরচর বাজারে যান ব্যবসায়ী নুরুল আলম। এ সময় ৪/৫ জন দুর্বৃত্ত তাকে কুপিয়ে ও ছুরিকাঘাতে জখম করে। পরে গুরুতর আহত অবস্থায় সিএনজি অটোরিকশায় করে তুলে নিয়ে যায় হামলাকারীরা।

ওই ঘটনার পর পুলিশ ও পরিবারের সদস্যরা স্থানীয় হাসপাতাল, উপজেলা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্স ও চট্টগ্রাম মেডিকেল কলেজ হাসপাতালে রাত ৮টা পর্যন্ত খোঁজ নিয়েও কোনো হদিস মেলেনি।

রাউজান থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা (ওসি) কেফায়েত উল্লাহ বলেন, ‘বিকেলে নিখোঁজ ব্যক্তির পরিবারের কাছ থেকে অভিযোগ পেয়ে পুলিশ তাকে উদ্ধারে মাঠে নামে। তার পরিবারের সদস্যদের নিয়ে ইতোমধ্যে বিভিন্ন হাসপাতালে খোঁজ নিয়েও সন্ধান মেলেনি ওই ব্যবসায়ীর।’

তিনি আরও বলেন, ‘নিখোঁজ ব্যক্তির পরিবারের পক্ষ থেকে অভিযোগ করা হয়েছে যে, স্থানীয় এক ব্যক্তির সঙ্গে বিরোধের জেরে গত দুই মাস জেলে ছিলেন নুরুল আলম। কয়েক দিন আগে জামিনে ছাড়া পেয়ে তিনি বাড়ি আসেন। তারা সন্দেহ করছেন, প্রতিপক্ষই ওই ঘটনা ঘটিয়েছে।’

স্থানীয় সূত্র জানায়, নিখোঁজ নুরুল আলম তিন বছর আগে আরব-আমিরাত থেকে চাকরি ছেড়ে দেশে ফিরে আসেন। এরপর একটি ট্রাক কিনে ভাড়া দিয়ে ব্যবসা করতেন। তার দুই ছেলেও ওমান থাকেন। গত রমজান মাসে তার বাড়ীতে হামলা ও লুটপাট চালায় দুর্বৃত্তরা। ওই ঘটনায় ইউনিয়ন যুবলীগের সহ-সভাপতি মোহাম্মদ আবু ও সহযোগীদের দায়ী করা হয়। পরে ওই যুবলীগ নেতাকে ছুরিকাঘাতের অভিযোগে গ্রেফতার হন তিনি। কয়েক দিন আগে তিনি জামিনে ছাড়া পেয়ে বাড়ীতে অবস্থান করছিলেন।