এমপি হতে চান পর্দার একঝাঁক তারকা

একাদশ জাতীয় সংসদ নির্বাচনে প্রার্থী হওয়ার জন্য আওয়ামী লীগ থেকে মনোনয়নপত্র সংগ্রহ করেছিলেন অভিনয় ও গানের জগতের অনেকে। কিন্তু তাঁদের কাউকে দল থেকে মনোনয়ন দেওয়া হয়নি। দলের সর্বোচ্চ পর্যায় থেকে এই মনোনয়নপ্রত্যাশীদের নির্দেশ দেওয়া হয়, জাতীয় সংসদ নির্বাচনে দল মনোনীত প্রার্থীদের পক্ষে যেন প্রচারণায় অংশ নেওয়া হয়। তারকাদের মধ্যে অনেকেই দলের সর্বোচ্চ পর্যায়ের নির্দেশনা মেনে নিয়ে আওয়ামী লীগের প্রার্থীদের পক্ষে প্রচারণায় দেশের বিভিন্ন অঞ্চলে যান, সাধারণ মানুষের কাছে প্রার্থীদের জন্য ভোট চান। এবার এই তারকাদের অনেকেই সংরক্ষিত নারী আসনের জন্য মনোনয়নপত্র সংগ্রহ করছেন। বঙ্গবন্ধু সাংস্কৃতিক জোটের সাধারণ সম্পাদক অরুণ সরকার প্রথম আলোকে জানান, এ পর্যন্ত যাঁরা মনোনয়নপত্র সংগ্রহ করেছেন, তাঁরা হলেন সারাহ বেগম কবরী, মৌসুমী, সুজাতা, ফাল্গুনী হামিদ, সুবর্ণা মুস্তাফা, অঞ্জনা, দিলারা, অরুণা বিশ্বাস, শমী কায়সার, রোকেয়া প্রাচী, শাহনূর, অপু বিশ্বাস, তারিন ও জ্যোতিকা জ্যোতি।
জানা গেছে, দশম জাতীয় সংসদের সংরক্ষিত নারী আসনের সাংসদ অভিনয়শিল্পী তারানা হালিম ছিলেন তথ্য প্রতিমন্ত্রী। এবার একাদশ জাতীয় সংসদ নির্বাচনে অংশ নিতে চেয়েছিলেন তিনি। কিন্তু দল থেকে মনোনয়ন পাননি। কিন্তু সংরক্ষিত নারী আসনে আজ বুধবার বিকেল পর্যন্ত মনোনয়নপত্র সংগ্রহ করেননি তিনি। জানা গেছে, প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনার কাছ থেকে সবুজ সংকেত পেলে তবেই তিনি মনোনয়নপত্র সংগ্রহ করবেন।
গতকাল মঙ্গলবার সকাল ১০টায় ধানমন্ডিতে আওয়ামী লীগ সভাপতির কার্যালয়ে মনোনয়নপত্র বিক্রির কার্যক্রম উদ্বোধন করেন দলটির সাধারণ সম্পাদক ও সেতুমন্ত্রী ওবায়দুল কাদের। ঢাকা দক্ষিণ মহিলা আওয়ামী লীগ নেত্রী নার্গিস রহমানকে মনোনয়নপত্র দেওয়ার মধ্য দিয়ে এ কার্যক্রম শুরু হয়। মনোনয়নপত্র বাবদ প্রতিজনের কাছ থেকে নেওয়া হচ্ছে ৩০ হাজার টাকা। এ সময় উপস্থিত ছিলেন আওয়ামী লীগের যুগ্ম সাধারণ সম্পাদক মাহবুব উল আলম হানিফ, সাংগঠনিক সম্পাদক ও পানিসম্পদ উপমন্ত্রী এনামুল হক শামীম, দপ্তর সম্পাদক আবদুস সোবহান গোলাপ, সদস্য এস এম কামাল, উপদপ্তর সম্পাদক বিপ্লব বড়ুয়া।
বাংলাদেশের ৩৫০ আসনের জাতীয় সংসদে ৫০টি আসন নারীদের জন্য সংরক্ষিত। ৩০০ আসনে সরাসরি ভোট হলেও সংরক্ষিত আসন বণ্টন হয় ভোটে জয়ী দলগুলোর আসনসংখ্যার অনুপাতে। এ পদ্ধতিতে এবার আওয়ামী লীগ ৪৩টি, জাতীয় পার্টি ৪টি, বিএনপি ১টি, ওয়ার্কার্স পার্টি ১টি ও স্বতন্ত্র প্রার্থীরা জোটভুক্ত হয়ে ১টি সংরক্ষিত আসন পেতে পারেন।