আমার বিয়েটি আপনারা ভেঙে দিন প্লিজ

আমার বিয়ের বয়স হয়নি, আমি আরও পড়াশোনা করতে চাই। কিন্তু আমার পরিবারের লোকজন জোর করে আমাকে বিয়ে দিতে চায়। আমি বিয়ে করতে চাই না, আমার বিয়েটি আপনারা ভেঙে দিন প্লিজ।
এভাবেই নিজের বিয়ে ভাঙার আর্তি জানিয়েছে ঢাকার ধামরাই উপজেলার কুল্লা ইউনিয়নের কান্দাপাড়া গ্রামের গাড়িচালক হারুনের মেয়ে সাদিয়া আক্তার হ্যাপি।

হ্যাপি জানায়, আমার বাবা আমাকে জোর করে বিয়ে দিতে চান। এ নিয়ে আমাকে মারধর করেছেন তিনি। কিন্তু আমার মা চান আমি লেখাপড়া করি। মা আমার পক্ষে থাকায় তাকেও তালাকের হুমকি দিয়েছেন বাবা। অর্থের লোভে বিদেশ ফেরত একজনের সঙ্গে আমার বিয়ে দিতে চান বাবা। আমি পড়াশোনা করতে চাই। লেখাপড়া করে উচ্চ শিক্ষিত হতে চাই। দয়া করে আমার বিয়েটা বন্ধ করুন। স্থানীয় সূত্র জানায়, কুল্লা ইউনিয়নের কান্দাপাড়া গ্রামের গাড়িচালক হারুনের মেয়ে সাদিয়া আক্তার হ্যাপি এবার এসএসসি পরীক্ষার্থী। জন্মসনদ অনুযায়ী তার বয়স ১৬ বছর ৩ মাস।

এ বিষয়ে জানতে চাইলে হ্যাপির বাবা হারুন বলেন, আমার মেয়ের বয়স ১৯ বছর হয়ে গেছে। সার্টিফিকেটে দুই বছর কম দেয়া আছে। জোরপূর্বক অপ্রাপ্তবয়স্ক মেয়ের বিয়ে দিচ্ছেন কেন এমন প্রশ্নের জবাবে হারুন বলেন, সব মেয়েই বিয়ের আগে এমন করে। তাকে জোর করা হইতেছে না। সে আর তার মা বাদে সবাই চায় তার বিয়ে দিতে। তাই তাকে বিয়ে দিতে চাই।

এ নিয়ে উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তা আবুল কালাম বলেন, অপ্রাপ্তবয়স্ক কোনো মেয়ের বিয়ের খবর শোনামাত্রই আমরা ব্যবস্থা গ্রহণ করি। এই বিয়ে নিয়েও আমরা দ্রুত প্রশাসনিক ব্যবস্থা গ্রহণ করব। এ বিষয়ে ধামরাই থানা পুলিশের ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা (ওসি) দীপক চন্দ্র সাহা বলেন, বিষয়টি শুনেছি। কিন্তু এখনো কেউ অভিযোগ দেয়নি। অভিযোগ পেলে আমরা দ্রুত ব্যবস্থা নেব।